এই লেখাটি 931 বার পড়া হয়েছে

দৃশ্য ১-৫

দৃশ্য ১-৫

অক্ত ঃ- দিন

জাগা ঃ- বারানসী রেজ্যোর ব্রম্মদত্ত রাজত্ব কালর অক্ত

 

(বারানসী রেজ্যার বিরেট বিরেট বেয়ারীউনর ঘর। গেন্ধেল উদ্যা অণার সমারে সমারে বোলীমন্দ দ্বিজন ঢুল বাজেয়্যা (রঙ্গলাল) হাক্কন হলামারনী দিবেক। ঢুলর তাল লারে লারে গোরি সং তালে তিন হেপ ঢুল মুগুরানার পর শুরু অভ’ দ্রুত তাল। ঢুলিউনে ঢুল বাজাদে বাজাদে লারে গোরি চিমেই যেই আধেক্যা গোরি মহ্ অভাক। মহ্ অনার সমারে সমারে ভিদিরেরেত্তুন বারানসীর বিবেগ

( রঙ্গলাল-১, রঙ্গলাল-২) হেলাং জাগাত এ্যাই কব’।)

 

পত্থম রঙ্গলাল (ঢুলী) ঃ- ইজ্জদী বারানসী রেজ্যোর মানেই সগল্লক তমারে কয়েক্কান কধা কভার আগে বন্দনা জানাঙর আমা রাজা ব্রম্মদত্ত আ রানীর উধিজে।

 

কিত্তনী সুরে গান

 

আমা মান্য রাজা ব্রম্মদত্ত

আঘে সুঘে শান্তিয়ে

দ্বিয়েন কধা কবার আগে

ঝু জানাঙর রাজা রানীর উধিজে ।

রেজ্যো আঘে রেজ্য থেব

সুগ শান্তি ছিদিব’

প্রজাউনর জ্ঞান অভ আর’ সুখ বারিব’। ঐ

 

(ঢুলর তাল ঃ- আর এগই তালে হাক্কন ঢুল বাজানার পর)

 

ইজ্জদী বারানসী রেজ্যোর মানেই লক’ আমি খুব সুগে আঘিয় কর্তা ব্রম্মদত্ত আমলানত। রেজ্যর আর’ কিজু সুখ শান্তি তেঙা পয়য্যার, ধনে মানে ব্যবসা বাণিজ্য টিপটিপ্যা অভার আজায় আমার বিরেট বিরেট পয়য্যাঅলা বেয়ারী দেঝ বিদেঝত বেয়ার গোরা যেবত্যায় মনস্থ গোজ্যন। তারা কর্তার আর্শিবাদ লবাত্যায় থুবো অধন।

 

ঢুলর তাল ঃ- আর এগই তালে হাক্কন ঢুল বাজানাত থেবাক। সে বাজানার সমারে বেয়ারী পাঁচজন দ্বিলাইন গোরি থিয়েবাক্কী। বাগী একজন পা-ফাজ্যা গোরি থিয়েব। পোজাকে আজাগে তারাও রাজা সান লাগিব’।

 

ঢুলর তাল ঃ- বেয়ারীউনে থুবো অণার পার আর’ ঢুল হাক্কন বাজানার পর-

 

দ্বিতীয় রঙ্গলাল ঃ- ইজ্জদী বারানসী রেজ্যর মানেই লক’ তুমি দেঘর আমার এই রেজ্যর তারা অলাখ সনার পুতুল। তারার বাণিজ্যর কারণে আমা এই বারানসী রেজ্য, টেঙা পয়য্যা, জ্ঞান গরিমায় ঝল্লপল্ল ওই আঘে। এ তারা ইক্কু ইজ্জদী রাজা ব্রম্মদত্ত সিধু অনুমতি প্রার্থনা গরা যাদন।

 

গান

 

বারানসীর রেজ্য কুলে

জনম নিলেক ধনীউনে

তারার তেঙা পয়য্যায়

সুগে আঘন মানেউনে

আমি সিধু যেবঙ্গে

আমি সিধু যেবঙ্গে

কর্তা সিধু বরমাগা যেবঙ্গে।

 

(বেক্কুনে গীত গেই গেই যেবাক্কই)

(সমারে সমারে সেই ঢুলর তাল বাজিব’ ভালক্কনসং)

দৃশ্য-২

 

অক্ত ঃ- দিন

জাগা ঃ- বারানসী রাজা ব্রম্মদত্তর রাজ দরবার।

 

(রঙ্গঁলাল দাঘীর ঢুলর তালর সমারে সমারে গেন্ধেল উদ্যা অভ’। দেঘা যেব’ বেয়ারীউনে তারা ধগে তারা থিয়েই থেবাক। তারার মধ্যে চেয়ার এক্কান খাল্যা থেব’। রঙ্গঁলাল দাঘীর বাদ্য বাজানার তালে তালে ভালক্কন পর রাজা ব্রম্মদত্ত দরবারত এব’। রাজার পিজে পিজে দ্বিজন পাংগা বিজি দিয়ে এবাক। রঙ্গঁলাল দাঘী- হিজি বাজানার পর আধেক্যা গোরি মহ্ ওই, পঞ্চরতন দাঘী বেক্কুনে রাজারে উধিজ গোরি প্রণাম জানেবাক।

 

রতনদাঘী ঃ- ঝু -ঝু– ঝু কর্তা।

(রাজা তারারে আহ্ধ উভো গোরি আর্শিবাদ জ্ঞাপন গোরিব।

রাজা ব্রম্মদত্ত         ঃ-কি সাম্বাদ পঞ্চরতন? রেজ্যর প্রজা সগল্লক, পজু-পী, মোনমুরো, ছরা-গাঙ বেক নালে নালে আঘে-নে, নেই?

পঞ্চরতন             ঃ- আঘে কর্তা, কর্তা রেজ্যর আর’ কিজু ধনভান্ডার

বারেবাত্যায় আমি জুক বোদিলঙ্গে দেজ- বিদেঝত এক্কা

বাণিজ্য বারেবার।

বায়ুরতন              ঃ- সিয়েন দ’ আঘে-নি কর্তা, আর’ এক্কা ভাবী চেলঙ্গে দেঝ-

বিদেঝ’ সমারে আমার ধনজুরনা  দরকার আঘে।

রাজা ব্রম্মদত্ত         ঃ- সিয়েন-দ খুব গম কধা ! এম্ভা রেজ্যর মাধা হেলানী মরও

সম্ভব নয়, তমার এসান্যা গোরি এহ্ঝাল পেলে আমা

রেজ্যয়ান আর’ দোল গোরি পারিবং।

মানেক রতন         ঃ-তুই আর্শিবাদ গোল্যে আঝা গোরির আমা এই বারানসী রেজ্যর সুনাম বেয়ার গরানার সমারে বারেই পারিবং।

রাজা ব্রম্মদত্ত         ঃ-মুই পাততুরুতুরু দোঙর, তমা মুওত ফুল চন্দন পোরোক।

বেলরতন             ঃ- কর্তা, থেহ্ খেলে, বিদেঝর ধনী ধনী বেয়ারীউন আমাইধু

দাগি আনি আমার আদা- ওলোত, ঘোস্যা-সুদো, মাজ

কাঙারা  মংগা মংগা গোরি বেজি পারিবং।

অগ্নীরতন             ঃ- অয় কর্তা, সক্কে আমা সিধু বানা তেঙা তেঙা বানা তেঙা

এবাক্কে।

পঞ্চরতন             ঃ- আ ! অগ্নীরতন! সিঙিরি মানজ্যরে কনা গম নয়।

বায়ুরতন              ঃ- তরে এধক কনা, সে মনত ন’ থেবার।

অগ্নীরতন             ঃ- আ! কিয়ে তেঙাত্যায়-দ’, আমি বেয়ারত লামিবঙ্গে?

রাজা ব্রম্মদত্ত         ঃ-না পঞ্চরতন! তুমি অহ্লা এই বারানসী রেজ্যর পাঁচ ধনী। সেনত্যায় রেজ্যোর মানচ্চুন তমারে চিনন পঞ্চরতন নাঙে। তুমি যুদি অগ্নীরতনে জিয়েন কর, সে মনে বেয়ারত লাম’ সালেন এ বারানসী রেজ্যর নাং-জজ, কীর্তি ন’ থেব’। আমারে মানজ্যে বজং থারেবাক। সক্কে চি-চি-ঘি-ঘি গোরিবেক। আমাত্তুন গম ধনী মানুষ দরকার। গম জ্ঞানী মানুচ জনম লনা দরকার। আমাত্তুন সে মনে উজনা দরকার। দেঝত জ্ঞানী থেলে মানজ্যে হিয়ে গরন।

বেলরতন             ঃ- কর্তা, বেয়ার গত্ত চেলে, এক জনরে আর একজনে ন’

থগেলে দাঙর ওই না’ পারে।

পঞ্চরতন             ঃ- উঃ সুর্যরতন সিঙিরি কিত্তে কহ্র। আমি এচ্চেইদে

কর্তাত্তুন বর চেবাত্যায়, ইয়েনী গোরিবত্যায় নয়।

রাজা ব্রম্মদত্ত         ঃ- থগা কাম ন’ গোজ্য। যার নিয়েজ্য পাওনা তারে দুও।

ফল  লগে লগে পায় সিয়্যা। সিভে দেশী ওক বিদেশী ওক,

যেই ওক, মানুচ, মানুচ ইঝেবে থারেবা।

পঞ্চরতন             ঃ- অয় কর্তা, আমি ত’ কধা অক্করে অক্করে পালন গোরিবং।

রাজা ব্রম্মদত্ত         ঃ- সালেন এই কধা, তমাত্যে আর্শিবাদ রল-মানেক, বায়ু,

অগ্নী, বেল, পঞ্চরতন তমার মংগল ওক।

 

(বেক্কুনে আহ্ধ জুর গোরি প্রণাম জানেবাক। রাজা দরবারত্তুন অন্দর মহলত সোমেব’। সে সমারে সমারে রঙ্গঁলাল দাঘী এগই তালে ঢুল বাজানার হাক্কন পর মহ্ অভাক)

 

দৃশ্য-৩

 

অক্ত ঃ- দিন

জাগা ঃ- বারানসী রেজ্যর বেয়ারীর ঘর’ উধোন।

 

(ঘরর উধোন। চেরো হেত্যা ফুত্যা ফুল’ গাজ। এক্কান ঘরর সিংহ দোর দেঘা যেব’। সে দোরান্দই বুজ’ যেব’ বারানসী রেজ্যয়ান আজলে ধনী আ-সুগী রেজ্য)

গেন্ধেল উদ্যা অণার সমারে রঙ্গলাল দাঘী সেই এগই তালে ঢুল বাজ্জানাত থেবাক। বাজ্জাদে বাজ্জাদে আধেক্যা গোরি ঢুল’ র’ মহ্ ওই পত্তম রঙ্গলালে কব’।

 

গান

 

পত্থম রঙ্গঁলালঃ-     ঘরগিরিত্তি সারিনে

বেয়ার গোরা যেবাক্কে

তেঙা পয়য্যা ধনে জনে

কাবিল ফোলেই এবাক্কে

পঞ্চরতন এবাক্কে

শুল্লগত তারা ববাক্কে

 

( ঘরার ধাভা দেনার র’ শুন’ যেব’। সমারে আর’ ঢুল তাল রঙ্গলাল দাগী অহ্রান অয় সং বাজেবাক। আর’ ঘড়ার ধাভা দেনার র’ শুন যেব’ আর’ ঢুল বাজানা শুরু অভ’। ঢুলুন এমন বাজানাত থেবাক রন’ গারে গায় উধিবের অভ’। ঢুল’ আধেক্যা মহ্ ওই এবার পঞ্চরতন দাঘী ঘরা পিদিত্তুন লামি লামি পাদেয়্যা আসনানিত গদে গদে ববাক ।)

 

দ্বিতীয় রঙ্গলাল ঃ- বারানসী রেজ্যর রতœ তারা

বেগর উগুরে ব্রম্মদত্ত রাজা

তারার উগুরে নেই আর কন কিচ্ছু

ভাবী চান্দে বারানসীর মানেই প্রজা।

পঞ্চরতন ঃ- ইজ্জদী বারানসী নগর কুল্যা, আমারে কর্তা খুব গমে দালে আর্শিবাদ দিল’। আমি যেনে গমে দালে বেয়ার গোরিনে এই বারানসী রেজ্যর সুনাম থুবেই পারিয়। ইক্কু আমি কমলে যাত্রা গোরিবং সিয়েনর পুর-ঘাদ ঠিগ গোরি লোই। কি-ক?

রতনদাঘী ঃ- অয় অয় অয়।

বায়ুরতন  ঃ-বেয়ার অহ্লেও আমি দ’ যে-সে পরভাজত যেবং অচিন রেজ্য, কদ’ বিপদ আপদ থেই পারে। এ্যইও পারে। আমা সেরেত্তুন একজন মলাদার বানেলে কি অয়? তেই- ই আমার বেক কিঝু দেঘা-শুনা, আপদ বিপদ রা গোরিব কধা কব’।

বেল’রতন            ঃ-মানে, নেতা বানেবার কস্যা আয় অয়?

বায়ুরতন  ঃ অয় অয়          ।

মানেকরতন          ঃ- বায়ুরতনর কধায়ান মন্দ নয়। আজলে বিপদ আপদ কক্কে এযে কোই পারা ন’ যায়।

অগ্নীরতন ঃ- সেয়ান্যা অহ্লে, মরে বান’ কি মরা, বিপদ- আপদ লাঘত পেলে ব্যাগ ফুয়েই নেযেম।

বেল’রতন            ঃ- সালেন দ’ অগ্নীরতন সান্যান মুইও কোই পারং মরে বান’।

অগ্নীরতন ঃ- তেহ কি গত্তং সালেন?

পঞ্চরতন ঃ- বেল’রতন ভেইবোলোই অগ্নীরতনে যে কধায়ান কধন, আজলে কি দরকার আঘে?

রতনদাঘী ঃ- অয় অয় অয়।

পঞ্চরতন ঃ- মত্তুন দ’ মনে অয়, দরকার নেই। কারণ আপদ বিপদ এলে আমি বেক্কুনে ঝাবেই পলে। ইয়ে মলাদার বানেবাত্যায় কধা উধি টেং টাং ওর। আ- কুধু আর বেয়ার গরানা অধ’!

বায়ুরতন  ঃ- অয়, পঞ্চরতনে কত্তে কধায়ান এব্রে ঠিক।

বেল’রতন            ঃ- না! যে গিরোজ দরকার।

পঞ্চরতন ঃ- সক্কে তা কধা মানা পোরিব’। ন’ মানিলে আমা মায় ভুল উদপত্তি অভ’। তার সিদ্ধান্তয়ান আমাত্যা গম ন’ ওই পারে।

অগ্নীরতন ঃ- আমি ঠিক থেলে কি, মাধা পাদি নিবং। অসুবিধে আঘে?

পঞ্চরতন ঃ- বেক্কুনে যুদি এক ওই, সালেন মলাদার ইঝেবে মুই পোইল্যা অগ্নীরতনরে প্রস্তাব দোঙর।

অগ্নীরতন ঃ- (এক্কা খুঝীর ভাব দেঘেব’) মুইও সে কধা কধুং চাঙ্গে আয়

( সে ফাগে বাগী তিনজনে হাক্কে দ্বিজনে কুধুম অণ, আ হাক্কে বানা দ্বিজনে কুধুম অণ)

বেল’রতন            ঃ- এক কাম গোল্যা কি অয়?

রতনদাঘী ঃ- কি –কি —কি?

পঞ্চরতন ঃ- দে কোই চ’।

বায়ুরতন  ঃ- মুই তরে প্রস্তাব দোঙর। তুই অহ্।

পঞ্চরতন ঃ- মরে নয়।

অগ্নীরতন ঃ- তে পাত্ত নয়। তে অল’ লী মানুচ। বিদেশত যেবং এক্কা কাজী সরান্যা মানুষ অহ্লে দোল অয়।

বেল’রতন            ঃ- সালেন এক কাম গোরিয়। ভোদাভুদি গোরিয়।

বায়ুরতন  ঃ- এ সিয়েন ওক।

রতনদাঘী ঃ- অয় —অয় —-অয়।

(এবার ভোদা-ভুদি গোরিবের প্রস্তুুতি গোরিবেক। কাগজ কলম লভাক)

অগ্নীরতন ঃ-ঠিক, যারে বানদে চ’ তা- নাঙান লেঘি সে হাঝাবোত কাবোচ্চ্যান ফেলেই দুও।

রতন দাগী            ঃ- অয়—অয়—অয়।

(কাবোচ্ছানি বেক্কুনে ফেলেলাক হাঝাবোত। হাঝাবো খুলী কাবোচ্চানি খুলি খুলি গনিলেক। যেরে হুজীয়ে ফাল মারি উধিলেক।)

বায়ুরতন              ঃ- এ্যাঁ পেয়েই, পাঁচ ভোদত্তুন চের ভোদ অল’ পঞ্চরতন।

(পঞ্চরতনে অলর গোরি চেই আঘে) আর অগ্নীরতনে অলদে

তিন  ভোদ। তে ই- ই ইক্কু আমার নেতা।

অগ্নীরতন             ঃ- আ- ওইয়্যা আয়।

বেল’রতন            ঃ- গোরিবের দ’ কিচ্ছু নেই, ভোদা-ভুদির কধা যক্কে মান্যাই,

পঞ্চরতনে সালে আমার নেতা অল’।

পঞ্চরতন             ঃ-তুমি মরে বিরেট এক্কান দায়িত্ব আভর খাবেলা। ঠিগ আঘে,

ম’ কধায় কধায় তমাত্তুন কিন্তু চলা পোরিব। তুমি রাজী?

রতনদাগী             ঃ- অয়—অয়–অয়।

বায়ুরতন              ঃ- কই রঙ্গলাল, ঢুল বাজ’ ঢুল বাজ’।

(আর’ শুরু অল’ ঢুল বাজানা। হানেক্কন আনন্দ খুজিয়ে

রঙ্গলাল দাঘী ঢুল বাজানার পর আধেক্যা মহ্ ওই)

রঙ্গলাল এক          ঃ- নেতা আমি পেই গেলং বেয়ার গোরা যেবাক তারা

নেতা আমি পেই গেলং।

রঙ্গলাল দুই          ঃ-ইজ্জদী বারানসীর নগর কুল্যা লক, পঞ্চরতনর তক্কিদে

তারা  এবার বেয়ারত যেবাক তারাত্যায় আমি প্রার্থনা গোরিবং

 

মঙ – র’

 

(গম্ভীর গোরি ঢং ঢং ঢং গোরি তিনখেব মঙ – র’  ভাঝি উধিব)

 

বুদ্ধং শরনং গচ্ছামি,

ধর্মং শরনং গচ্ছামি,

সংঘং শরনং গচ্ছামি।

 

(রতন দাঘী এবার পঞ্চরতনর পুনে পুনে ভাব গম্ভরি গোরি যেবাক্কই।)

 

 

দৃশ্য-৪

 

অক্ত ঃ- দিন

জাগা ঃ- বারানসী রেজ্যর পঞ্চরতনর ঘর’।

 

(এক ভুদি আপেল কমলা নানান ফলাহার আহ্ধত লোইনে ঘরত এব’ তা মোক পদ্মকুমর’ মারে দাগি দাগি এব’ সমারে বায়ুরতনেও উক্ক ভুদি ধোরি এব’)

 

পঞ্চরতন             ঃ- পদ্ম কুমর’ মা ও পদ্মকুমর মা—-। কুধু গেলে?

বায়ুরতন              ঃ- ঘরত নেই পারা পাং।

(হাক্কন পর পদ্ম কুমর মা’ থেঙত খারু পিনোন পিন্যা বুগত

খাদি বান্যা রুবরাদি ঝোলঝোল্যা গোরি এ্যাই)

পদ্মকুমর মা          ঃ- আ কি দ্বিজনে দ্বিবে ফলাহার লোই এলা? কি ওইয়্যা?

পঞ্চরতন             ঃ- আমার তেম্মাঙত জরা বোদ্যাদে এযেত্তে বৈজেগী পূর্নিমাত

সংঘদান গরানার পর আমার বেয়ারত যানা অহ্র।

পদ্মকুমর মা          ঃ- কন্না কন্না যর?

পঞ্চরতন             ঃ- মুই, বায়ুরতন, বেল’রতন, অগ্নীরতন আ-মানেক রতন।

বায়ুরতন              ঃ- মানে বারানসী রেজ্যর এ পাচ্ছো রতœ আয়!

পদ্মকুমর মা          ঃ- পাঁচ রতœ-দ’ দাঙর কধা- নয়, সক্কে বারিজে কাল পরিব’।

যেবা বেয়ারত, দেঝর বানিজ্য বারেবাত্যায় যেইনে অন্য

এক্কান অহ্লে, এ্যা সিয়েন আয়।

পঞ্চরতন             ঃ- সিয়েন ভগবানর ব্যাপার। কর্মত যিয়েন থায় সিয়ান-দ’

অভ’। দর ফলহাঝানি থগোই, বেন্যা ভান্তের উধিজে এক্কা

পানীয় তুলি দিজ। আ- বাগিয়েন মন্দিরত যেইনে ভান্তেরে

খাবেই এবঙ্গই।

পদ্মকুমর মা          ঃ- তুমিও মন্দিরত যেবা? (বায়ুরতনরে চেই)

বায়ুরতন              ঃ- আ যেবাত্যায়।

পদ্মকুমর মা          ঃ- সালেন এক সমারে দিবঙ্গই দে।

বায়ুরতন              ঃ- অয়- অয়। আ ও তারারেও ফাগত ভোরেই পারিবং-দ’।

পঞ্চরতন             ঃ- ধর্ম কর্ম কাম একজনে ভিলে ন’ গরে। ভান্তেও বারবার

কয়।  সালেন জানেই’ দিজ।

বায়ুরতন              ঃ- অয় অয়। যাং সালেন (যাদে যাদে উল্লো ফিরি এ্য্ইা)

– ও ভুজি আর’ এক্কান কধা তরে ন’ কঙ!

পদ্মকুমর মা          ঃ-  কি কধা?

বায়ুরতন              ঃ-  পাঁচ জনর সেরেত্তুন পঞ্চরতন ভেইবো আমার ইক্কু

মলাদার। মানে নেতা।

পদ্মকুমর মা          ঃ- নেতা! সে উজু বন্দ মানুষ্যরে কিয়ে পেল’ নেতা আথ্যা

বরবাদ দিবে-দে। বেল’রতন আ নয় অগ্নীরতনরে কিয়ে -ন’

বানেলা?

বায়ুরতন              ঃ- ও মা! অভার চেয়ন। ওই ন’ পারন্দে।

পদ্মকুমর মা          ঃ- আ কিয়ে?

বায়ুরতন              ঃ- ভোদা-ভোদিত তারা অহ্ধি যেয়ন্দে আয়।

পদ্ম কুমর                        ঃ- আ রাগা রাগি ন’ অহ্।

পঞ্চরতন             ঃ- আ-কি রাগা রাগি অহ্ধ।

বায়ুরতন              ঃ- তেহ্ সালেন মুই যাং। এই কধা—–

 

 

দৃশ্য-৫

 

অক্ত ঃ- দিন

জাগা ঃ- বারানসী রেজ্যর অগ্নীরতনর ঘর’।

 

(অগ্নীরতন্দই তা মোক টাদা টাদি গোরিবেক)

 

অগ্নীরতন             ঃ- তরে কঙেত্তে মুই যাং। আর’ একখেবত বেক মোক্কুনরে

নেযেবং। মিলে-মানুষ, দেঝে বিদেঝে ঘুরনা, কধ’ ঝর

বাদোল, বিপদ আপদ আঘে।

সুর্যলতা               ঃ-কন’ জনে ন’ গেলেও মুই গায় যেম (রাগে টাগে)। তমারে

কন’ বিচ্ছেস নেই। কন রেজ্যত্তুন কন’ রেজ্যত পরগোই উভ’

আঘেদে!এক খেব লামিলে ঘরদোর উভ নেই গোরি থাগ গাই

অগ্নীরতন             ঃ- আ -হা, সিঙিরি ন’ কোজ না তরে দেলে অন্য মোক্কুনেও

ভেঙেবাক দ’। সে বারা তুইও যুদি যাজ, সালেন ইন্দি ঘর

সংসার, বেপসা পাতি কন্না চেব’ ঘরত আঘন বুড়ো -মা বাপ

তারারে চা- ন’ পোরিব নে?

সূর্যলতা               ঃ- ত’ মা-বাপ চিদপুল্যে গোদেল থিগে ভোন আঘন সিউনরে

এবাত্যায় কভে। তারা চেবাক্কি।

অগ্নীরতন             ঃ- আ-হা তারাত্তুনও কি বুরোবুরি নেই না!

(এ্যান অক্তত বেল’রতন মোক্ক চিবেচোগী চিল্যা-ফাজ্যা

জোগার  পারি পারি এ্যাই অগ্নিরতন ঘর’ উধোনত নেক

পাজা ধোরিবগী)

চিবেচোগী            ঃ- ও সূর্যলতা ভোন, শুন্যস-নি আমারে ফেলেই বিদেঝ

বেয়ারত যাদন্দে, গেল্লে বারদ যাদে শলাত কোয়োন্দে এবার

আমারেও নিবেক। আর’ চুপ গোরি যেবার যুগলেন্দ-দে। মুই

অহ্লে ফারত ধোরিত ধুলি ধুলি যেম কঙত্তে।

সূর্যলতা               ঃ- (নেক্কো অগ্নীরতনরে চেই টাগী কব’)- শুন্যস, সুর্যলতা

ভোন্ন কি কর? এবার সারী পাত্তা নয়।

অগ্নীরতন             ঃ- আ- হা, ভোন লক, আ- কিয়ে সেয়ান্যান গর’। আমি-দ’

সিধু দেঝর উঝন্দিত্যায়, পরিবার উঝন্দিত্যায় বেয়ার গোরা

যেত্তে। অন্য কিজু-দ’ নয়।

সুর্যলতা               ঃ- অয়। একবার যেবা, গোদা ফরা- ফেজেরা গোরি এযগোই

আমনর সিয়েনী কাজাদে অহ্য়।

চিবেচোগী            ঃ- এব্রে ঠিগ কোয়োচ ভোন। ম’ ইভেও সেয়ান্যান- বো।

(এ্যান অক্তত বায়ুরতনে এব’)

বায়ুরতন  ঃ- ভেই লক, আমা নেতা পঞ্চরতনে কোইয়্যাদে এযেত্তে কেল্যা মন্দিরত যেইনে সংঘদান গোরিদঙ্গই। তেহ্ ভূঝিদাগীরেও নিবেত্যায় কোয়েÑ। তরেও লাঘত পেই গম ওইয়্যা (চিবেচোগীরে টাগী) সিন্ধি আর যা-ন’ পল্ল্যে ত’ বেলরতন ভেইবোরেও কবেদে আয়।

চিবেচোগী            ঃ- দেখ্যস সূর্যভোন, পঞ্চরতনদা কেজান্যা দোল মন। আমা সিগুন-দ’ নিত্য এ মাধা, ও মাধা।

সূর্যলতা   ঃ- অয়- অয়- এবার সারা সারি অধ’ নয়।

বায়ুরতন  ঃ- আ কি ওইয়্যাদে ভোন লক?

সূর্যলতা   ঃ- (লগত আঙুল দেঘেই দেঘেই) কি ওইয়্যাদে নয়, এ ত’ মোক্করেও লভে, তমা লগে আমাত্তুনও এবারত যা পোরিব’। বুঝিলে?

বায়ুরতন  ঃ- উঃ ম’ সিভে-দ’ কুুঝী পরমা। কন’ তুমি সারকাল্যা কিনে বল পেয়্যা কধা কত্তে। আচ্ছা সে কধা বাদ দুও মুই যাঙর। কেল্যা কধা অভ’। মুই যাঙর।

(বায়ুরতনে যেবগোই। তারপর চিবেচাগীও কব’ )

চিবেচোগী            ঃ- মুইও যাঙর ভোন-দে। ম-ইবেরেও এক্কা গুঝ ঠিগ গোরি দোঙ্গই। (এবার চিবেচোগীও যেবগোই)।

অগ্নীরতন ঃ- আচ্ছা, যিয়েনী নয় সিয়েনী লোই কিত্যায় জাগুলুক পেদাস? জাগাত পানি, জাগাত ভাত, সনা, রুব’ অস্ত্র, অলংকার যা লাগে তা পহ্র। তুও কিয়ে জাগুলুক পেদাস।

সুর্যলতা   ঃ- সিয়েনী তুই বুত্যা নয়।

অগ্নীরতন ঃ- অয় অয় বানা তুই বুজস্যা। (রাগ দেগেই তেও যেবগোই)

Print Friendly, PDF & Email

এই বিভাগের আরো লেখা পড়তে নিচের দেওয়া শিরোনাম এ ক্লিক করুন

আপনার মন্তব্য প্রদান করুন

আপনার ই-মেইল এ্যাড্রেস প্রকাশিত হবে না। * চিহ্নিত বিষয়গুলো আবশ্যক।

*
*