এই লেখাটি 768 বার পড়া হয়েছে

নাটকের সার সংক্ষেপঃ

নাটকের সার সংক্ষেপঃ

১৯৬০ খিষ্টাব্দে তৎকালীন পাকিস্তান সরকার অবিভক্ত পার্বত্য চট্টগ্রামের কর্ণফুলী নদীর কাপ্তাই নামক স্থানে বাঁধ দিয়ে কৃত্রিম ‘হ্রদ’ তৈরী করে। উদ্দেশ্য, এ ‘হ্রদ’ থেকে বিদ্যুৎ উৎপন্ন করে দেশকে আলোয় আলোকিত করা এবং মৎস্য সম্পদে পরিপূর্ণতা আনা।

কপালে বাজ পড়ে যায় এ এলাকার বিশাল জনসমষ্টির উপর। তারা এখন নিরুপায় কোথায় যাবে? প্রতিবাদের ভাষা তাদের নেই। যাই হোক, সরকার তিগ্রস্থ মানুষের কাছে দাঁড়ায় কিছু কিছু অর্থ এবং জয়াগার বদলে জায়গা প্রদানের মাধ্যমে। কিন্তু এরি মাঝে সৃষ্টি হয় টাউট-বাটপার ঘুষখোর এবং চামচা শ্রেণী। অন্যদিকে, নির্বোধ মানুষ হঠাৎ টাকা পয়সা পেয়ে ঝুকে পড়ে অধঃপতনের দিকে। ফলে তিপূরণের প্রাপ্ত টাকা দিয়ে রেডিও, কলেরগান, বন্দুক, হারমোনিয়াম, তবলা, বেহালা ইত্যাদি ক্রয় করে। সেই সঙ্গে আরো যোগ হয় মদ-জুয়া, চুরি-ডাকাতিসহ নানা অপরাধ মূলক কাজ।

একসময় কাপ্তাই লেকের পানি বেড়ে যায়। ডুবে যায় মানুষের বাপ-দাদার ভিটেবাড়ী সহায় সম্বল। পার্বতী বাপও এর থেকে দুরে নয়। পার্বতীর বাপও চলে যায় তার গর্ভবতী স্ত্রী আর কন্যা পার্বতীকে নিয়ে নৌকা যোগে লোগাং এলাকায়। এ দুর্দিনে পথের মধ্যে পার্বতীর মার ২য় সন্তান জন্ম হয়। নাম রাখা হয় পরানধন।

শুরু হয় নতুন জায়গা আবাদ। কঠিনভাবে শুরু হয় তাদের বেঁচে থাকার সংগ্রাম। এ জীবন সংগ্রামের মধ্যে পার্বতীর বাপের বিভিন্ন টানা পোরেন কেটে উঠার। এ সময়ের মধ্যে শুরু হয় দেশের মধ্যে ১৯৭১ সালের স্বাধীনতার আন্দোলন। সৃষ্টি হয় বিভিন্ন অরাজকতা। সেই অরাজকতার মধ্যে গভীর রাত্রে পার্বতীর বাপ খুন হয়। স্ত্রীর গর্ভে রেখে যায় তৃতীয় সন্তান ।

নেমে আসে পার্বতীর মায়ের জীবনে করুন ট্রেজেডী। পিতৃমুখ না দেখেই তার তৃতীয় সন্তানের জন্ম হয়। নাম রাখা হয় সরানধন। তার সন্তানাদি ক্রমে বড় হতে চললো। দু’ভাই এক সঙ্গে খায় দায় ঘুমায়, সময়ান্তরে স্কুলে পাঠে যায়। আবার তীর ধনুক নিয়ে গভীর জঙ্গলে সঙ্গী সাথীদের নিয়ে বাঘ-ভালুক শিকারে বের হয়। এ সময় লেগে যায় দু-পুত্রের দ্বন্দ। অপরদিকে একদিন পার্বতীর মা জংলী তরীতরকারী সংগ্রহ করতে গিয়ে পড়ে যায় হয় বাঘের কবলে। আহত অবস্থায় পার্বতীর মাকে ঘরে আনা হয়। কিন্তু চিকিৎসা এবং সেবার অভাবে ও ছেলেদের মধ্যে দ্বন্দে পার্বতীর মা মৃতে্যুর কোলে ঢলে পড়ে। এভাবেই ‘বান’ নাটকের কাহিনীর পরিসমাপ্তি ঘটে এবং থেকে যায় অদ্যাবধি দু’ভাইয়ের দ্বন্দ।

The gist of the play

 

The then Pakistan Govt. created an artificial lake at Kaptai in the undevided CHT by making a dam on the Karnafuli. The aim is to lighten the country with hydro-electricity and make the country abound with fish.

 

But it was a bolt from the blue to the vast population of the area. Where will they take shelter ? They don’t know how to protest. However, the govt. started to compensate them a little by giving some money or some lands. But a class of bribe-eater and fraud grew up in the society to avail the opportunity cooperating with the govt officials. On the other hand, having cash money as compensation the simple, ignorant people started to absorb themselves in luxuries as well as in drinking, gambling, theft, robbery  and other offensive deeds. In course of time, the water in the Kaptai Lake increased and all means of liveliood and cultivable lands of their fathers were submerged. Parboty’s father is also no exception. He left his ancestor’s place with his pregnant wife and the only daughter Parboty towards Logang by boat. On the way, a male child was born who is named Poran Dhan.

 

Thus, Parboty’s father started  struggle  for existence in the new destination. Life went on in weal and woes. Then the liberation war of Bangladesh started in 1971. Availing the situation, some persons created anarchy in the area. Being a victim of such anarchy one day, Parboty’s father got missed from his own house before the brth of his 3rd son.

 

Hard reality stood on the face of Parboty’s mother and  in such a situation she gave birth to her the 3rd child and he is named Soran Dhan. Poran Dhan and Soran Dhan the two brothers gradually grew up. They passed their time together in school, in jungle with bows and arrows for hunting. But once a  friction between two brothers arose on a trifling matter. On the other hand, one day their mother fallen a victim to a tiger while she was collecting vegetables in the jungle. The wounded mother was brought to home but to the brothers rivalry and for want of treatment  and nursing brought their mother’s  death. In this way the story of Baan (flood) ended and from then on the rivalry of the two brothers is still running on.

Print Friendly, PDF & Email

এই বিভাগের আরো লেখা পড়তে নিচের দেওয়া শিরোনাম এ ক্লিক করুন

আপনার মন্তব্য প্রদান করুন

আপনার ই-মেইল এ্যাড্রেস প্রকাশিত হবে না। * চিহ্নিত বিষয়গুলো আবশ্যক।

*
*